পারব না কে, না বলো। নিজেকে খুজে বের করো পৃথিবীর সবচেয়ে ধনী ব্যাক্তি দের একজন-- জেফ বেজোস ভয়কে করতে হবে জয় হার না মানার গল্প  গুগল ও ফেজবুকের প্রতিষ্ঠাতা সবচেয়ে বেস্ট মটিভেশনাল স্পিকার-  সন্দীপ মহেশ্বরী

Wednesday, January 30, 2019

সুলাইমান সুখন






সুলাইমান সুখন সংগ্রমী একজন মানুষের গল্প

আমাকে স্কুলে ভর্তি করলেও বইয়ের সংকট থাকায় মা নিজের হাতে এঁকে এঁকে তৈরি করেন প্রথম শ্রেণী শিক্ষার্থীর আমার বাংলা বই। মায়ের হাতে আঁকা বই নিয়ে স্কুলে গিয়ে বিপাকে পড়ে গেলাম। কারণ সহপাঠিরা ছাপার বই বাদ দিয়ে আমার মায়ের হাতে আঁকা বই নিয়েই বেশি ব্যস্ত ছিলো।’ 

 হ্যা এই সেই ব্যাক্তি  যার পুরোনাম খন্দকার মোহাম্মদ সোলায়মান ডাক নাম সুখন ১৯৮০ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি যশোর সেনানিবাসে জন্মগ্রহণ করেন সোলায়মান সাবেক সেনা সদস্য বাবা আব্দুল ওয়াদুদ এবং অবসরপ্রাপ্ত স্কুল শিক্ষিকা মা সামসুন নাহার খন্দকারের ছেলে দুই মেয়ের মধ্যে তিনি মেঝো।
 ছেলেবেলায় ঈদের সময় তিন ভাই-বোনের জন্য আলাদা করে নতুন জামা-কাপড় কেনা হতো না।  কারো জন্য জামা আর কারো জন্য প্যান্ট।  এমন মধ্যবিত্ত পরিবারে বেড়ে ওঠা সুখনের

।বড় বোন সোহেলী পারভীন গৃহিণী, সেঝো ভাই খন্দকার রায়হান ডাইমেনসন নামের একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সহকারি ব্যবস্থাপক হিসেবে কর্মরত আছেন। আরেক বোন খন্দকার চামেলী পারভীন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে বি-বারিয়া সরকারি কলেজ থেকে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেছেন। ছোট ভাই ওসমান ইমন বিজ্ঞাপন নির্মাতা। গ্রামীণফোনের সাবেক কর্মকর্তা স্ত্রী সায়রা বেগম স্ট্যান্ডার্ড ওয়ানে পড়ুয়া মেয়ে নাজলা ওয়াফাকে নিয়েই সোলায়মান সুখনের পরিবার।

৮ম শ্রেণীতে পড়াকালীন সময়ে ১০ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের বিতর্ক প্রতিযোগিতার স্ক্রিপ্ট লিখে জীবনে প্রথম ১০০ টাকা আয় করেছিলেন। নিজের পেশাগত কর্মজীবন নিয়ে তিনি বলেন, ‘ বছর ট্রেনিং শেষ করে ২০০০ সালে বাংলাদেশ নৌবাহিনীতে সাব লেফটেন্যান্ট হিসেবে যোগ দেই। আমি একটু স্বাধীনচেতা মানসিকতার হওয়ায় মনে হতো সামরিক জীবন আমার জন্য প্রযোজ্য নয়। তাই ২০০২ সালে চাকরিটা আমি ছেড়ে দেই। 

এরপর আইবিএতে পড়াশোনার জন্য কর্মজীবনে কিছুটা বিরতি দিয়ে আবার শুরু করি। এরপর ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো, বাংলালিংক-এর মত প্রতিষ্ঠানে ব্র্যান্ড ম্যানেজার মার্কেটিং এক্সিকিউটিভ হিসেবে কর্মরত ছিলাম। বর্তমানে আমরা নেটওয়ার্কসের সাথে প্রধান বিপণন কর্মকর্তা হিসেবে কাজ করছি। দেশব্যপী ফ্রি ওয়াইফাই ব্যবহার করে ইন্টারনেটে প্রবেশাধিকার নিশ্চিত করতে  কাজ করে যাচ্ছি।

তার কথার জাদুতেই কোন তারকা না হয়েও তিনি ফেসবুকের জনপ্রিয় ব্যক্তিত্ব। রয়েছে প্রায় লক্ষ ৪১ হাজারেও বেশি ফলোয়ার।  এছাড়া ২০০৯ সালে ইউটিউবে যোগ দেওয়া সুখনের এসব অনুপ্রেরণামূলক বক্তব্য তার ইউটিউব চ্যানেল থেকে দেখা হয়েছে কোটি মিনিটের বেশি। 

আন্তর্জাতিক অঙ্গনশুধু ইন্টারনেট দুনিয়ায় থেমে নেই সুখন  জাতীয়-আন্তর্জাতিক অনুষ্ঠানে কথার জাদু ছড়িয়ে সাড়া ফেলেছেন সুখন।  পর্যন্ত ৫০টিরও বেশি বিশ্ববিদ্যালয়ে সেমিনারে বক্তব্য রেখেছেন সুখন।  তিনি বলেন, ‘আমি কোন সুদর্শন ব্যক্তি না, কোন তারকা না, তবুও পর্যন্ত আমি যতগুলো অনুষ্ঠানে বক্তব্য রেখেছি এটা দেখে অবাক হয়েছি- সামনের কোন চেয়ার খালি ছিলো না। ’ কিভাবে এই কথার জাদু শিখলেন এমন প্রশ্নের জবাবে সুখন বলেন, ‘ছোটবেলায় বাংলাদেশ টেলিভিশনে প্রধানমন্ত্রী-রাষ্ট্রপতিদের সরাসরি বক্তব্য দেওয়া শুনে খুব ইচ্ছে হতো, আমি যদি এমন বক্তব্য দিতে
পারতাম।

  এরপর সরাসরি মানুষের সাথে কথা বলার প্রযুক্তি আসলো হাতের কাছে।  সেখান থেকে শুরু।  এছাড়া আমি ছোট থেকে প্রতিদিন দেশি-বিদেশি নিউজের হেডলাইন পড়তাম, সেখান থেকে আমি সমসাময়িক কোন ব্যাপারে কথা বলা যায় সেটা ঠিক করতাম।  আর যারা বক্তব্য দেয় তারা কিভাবে কথা বলে, কথা বলার সময় তাদের শারীরিক ভাষা খেয়াল করতাম। ’ নিজের জনপ্রিয়তার কারণও জানালেন তিনি, ‘আমাদের দেশে মত প্রকাশের স্বাধীনতা যতটা জরুরি তার চেয়ে মত প্রকাশের শালীনতা রাখা জরুরি।  সেটার চেষ্টা করেছি, তাই মানুষ পজেটিভভাবে নিয়েছে। ’

এই ছিল এই জীবন যুদ্ধে জয়ী মানুষটার জীবনের কিছু অংশ।। পরবর্তীতে আপনাদের জানানোর জন্য আরো ব্যাপক আকারে পোষ্ট করা হবে।
(তথ্য সূত্র: ইন্টারনেট)

জিবন যুদ্ধে জয়ী সুশান্ত পাল













সুশান্ত পালের ডাক নাম বাপ্পি। বর্তমানে কর্মরত আছেন সহকারি কমিশনার কাস্টমস এক্সাইজ ভ্যাট হিসেবেএ।চট্টগ্রামের ছেলে সুশান্ত পাল। ছোটবেলা থেকেই পড়াশোনায় ভালো ছিলেন। ক্লাসের রোলটি বরাদ্দ ছিলো তার জন্য। তবে অষ্টম শ্রেণীতে উঠে প্রথম হয়ে যান।এর পেছনে রয়েছে এক মজার ঘটনা।

Tuesday, January 29, 2019

বাংলাদেশ



দক্ষিণ এশিয়ার একটি জনবহুল রাষ্ট্র বাংলাদেশের সাংবিধানিক নাম গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ।  ১৯৪৭ খ্রিস্টাব্দে ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক শাসনাবসানে ভারতীয় উপমহাদেশ বিভক্ত হয়ে পাকিস্তান নামে যে দেশটি সৃষ্টি হয়েছিলো তার এক অংশের নাম ছিল পূর্ব বাংলা । আর এক অংশের নাম ছিল পশ্চিম বাংলা। 

Sunday, January 27, 2019

বিশ্ববিজ্ঞানী জামাল নজরুল ইসলাম

সারা পৃথীবিতে আলোড়ন সৃষ্টিকারি একজন মহান বিজ্ঞানী হলেন বাংলাদেশের জামাল নজরুল ইসলাম।   এই বিশ্ববিখ্যাত বিজ্ঞানী প্রফেসর জামাল নজরুল ইসলামের জন্ম  ২৪ ফেব্রুয়ারি ১৯৩৯ সালে।