পারব না কে, না বলো। নিজেকে খুজে বের করো পৃথিবীর সবচেয়ে ধনী ব্যাক্তি দের একজন-- জেফ বেজোস ভয়কে করতে হবে জয় হার না মানার গল্প  গুগল ও ফেজবুকের প্রতিষ্ঠাতা সবচেয়ে বেস্ট মটিভেশনাল স্পিকার-  সন্দীপ মহেশ্বরী

Friday, February 15, 2019

একটা সঠিক সিদ্ধান্ত জীবন বদলে দেবে


কাহীনি  টা দুই ভাই এর যারা এক গ্রামে বাস করত। দুই ভাইয়ের কেউই তেমন কোন কাজ করত না।শুধুই শুয়ে বসে দিন কাটিয়ে দিত।এভাবেই তাদের জীবন খুব ভালো ভাবেই চলছিল ।তারা যেই গ্রামে বাস করত সেই গ্রামে পানির প্রচন্ড সংকট ছিল।গ্রামের মহিলারা মাথায় কলসি নিয়ে দুরে নদীতে যেত পানি আনতে।

তবুও পানির সংকট থেকেই যেত। সকাল বেলা পানি আনলে আবার সন্ধ্যা বেলা প্রত্যেক ঘর থেকেই পানি ফুরিয়ে যাবার সংবাদ পাওয়া যেত।দুই ভাই একদিন পথের ধারে গাছের নিচে ছায়ায় বিশ্রাম নিচ্ছিল এমন সময় তারা লক্ষ্য করল।। তাদের সামনে দিয়ে কিছু মহিলা পানি আনতে যাচ্ছে। এটা দেখে তাদের মাথায় একটা কাজের পরিকল্পনা চলে এলো।তারা চিন্তা করল আমরা প্রতিদিন বসেই থাকি। আমাদের কোন তেমন কাজও নেই।কেমন হয় যদি এই মহিলাদের পরিবর্তে আমরা পানি আনতে যাই আর সবার কাছ থেকে প্রত্যেক কলসির জন্য দশ দশ করে টাকা নিই।

এতে করে আমাদের একটা কাজ হয়ে যাবে। আর গ্রামের মানুষদের একটু সুবিধা হবে।যেমন চিন্তা করা তেমনই কাজ- আর তারা গ্রামের মানুষদের জন্য এই কাজ শুরু করে দিল।এতে করে তাদের বেশ ভাল রকম একটা আয়ও হয়ে যেত। একদিন যখন তারা নদীর ধারে পানি আনতে গেল সেখানে গিয়ে দেখল পাশের গ্রামের মানুষেরা নদীর থেকে পাইপ নিয়ে তাদের জমিতে পানি দিচ্ছে।
এটা দেখে জনের মাথায় হটাৎ একটা বুদ্ধি এলো সে তার ভাইকে বললভাই আমরা যদি একটা পাইপ নিয়ে নদী থেকে আমাদের গ্রাম পর্যন্ত নিয়ে যাই তবে খুব সহজেই আমরা গ্রামেরমানুষদের কে পানি দিতে পারব। তখন ভাইটি উত্তর দিল পাগল হয়েছিস তুই এটা কখনোই সম্ভব না।

 এত বড় পাইপ আমরা পাবো কোথায়।। আর এর জন্য কত খরচ হবে একবার ভেবে দেখেছিস। এর পরও যদি আমরা সফল না হয় তবে গ্রামের মানুষের কাছে মুখ দেখবো কি করে।এই বলে সে তার প্রতিদিনের কাজ করতে থাকল। কিন্তু জনের মাথায় সেই একটাই চিন্তা ঘুরতে থাকল কিভাবে এটাকে সহজ করা যাই।। তাই সে তার চিন্তা সাহস কে আর এক ধাপ এগিয়ে নিল। সে নদী থেকে যতদুর সম্ভব তার গ্রামের কাছ পর্যন্ত নালা করল। আর তার পর তাতে পাইপ লাইন লাগিয়ে দিল।
 এতে করে সে তার গ্রামের মানুষদেরকে খুব দ্রুত , এবং যখনই প্রয়োজন পড়ছে তখন পানি সরবারহ করতে লাগল তাও আবার প্রত্যেক কলসি পাঁচ টাকা করে নিয়ে। এই ভাবে সে খুব দ্রুত তার গ্রামের সব চেয়ে ধনী মানুষে পরিণত হল।

এবার কি হলো সেই জন যে তার ভাই এর সাথে সহমত ছিল না একদিনেই তার ক্রেতা সংখ্যা কমে গেল। আর সে আবার বেকার হয়ে গেলো।

আমাদের মধ্যেও এমন হাজারও মানুষ রয়েছে যারা পড়ে যাবার ভয়ে হাটতে পছন্দ করে না। ব্যার্থতার ভয়ে উদ্দ্যোগ নিতে পছন্দ করে না। জীবনের প্রতিটা সিদ্ধান্তে তাদের ভয় কাজ করে। আর সারাটা জীবন নির্জীব হয়ে বেচেঁ থাকে।আর এর থেকে বাইরে বেরিয়ে আসতে হলে আমাদেরকে আর এককদম সামনে এগিয়ে আসতে হবে। নিজের সিদ্ধান্ত গুলো নিজেকে নিতে হবে।তবেই না আমরা ভয়কে করব জয়।শেষ থেকে করব শুরু।

0 Comments:

Post a Comment