পারব না কে, না বলো। নিজেকে খুজে বের করো পৃথিবীর সবচেয়ে ধনী ব্যাক্তি দের একজন-- জেফ বেজোস ভয়কে করতে হবে জয় হার না মানার গল্প  গুগল ও ফেজবুকের প্রতিষ্ঠাতা সবচেয়ে বেস্ট মটিভেশনাল স্পিকার-  সন্দীপ মহেশ্বরী

Saturday, March 2, 2019

একটা সঠিক সিদ্ধান্ত তোমার জীবন বদলে দিতে সক্ষম

আমাকে যখন কেউ প্রশ্ন করে – ইয়ার এই যে  তুই এই সব কথা বলিস, এই সে মানুষের মনের মধ্যে আলাদ একটা অনুভুতি জাগিয়ে তুলিস।। এই সব কথা  তুই কোথায় পাস।। তোমার মাথাই আসে কি করে  এই সব কথা ?
তখন আমি আমার বন্ধুদের কে একটা গল্প বলি আজ সেই গল্পটিই আমি লিখতে চলেছি।।

আমি বলি---   ইয়ার আমি যখন ছোট ছিলাম আমার দাদি আমাকে গল্প , কাহীনি শুনাতো। সেই সব গল্পের মধ্যে একটা গল্প এমন ছিল যে,এক ব্যাক্তি তার সারাটা জিবন শুধু  এই চিন্তাতেই কাটিয়ে দিল -যে কাল কি হবে? । এই কালকের চিন্তা করতে করতে সে ভুলেই গেল যে আজ কি ভাবে বাচঁতে হবে। কোন কাজে ব্যার্থ হবার ভয়ে সে কখনো কোন কাজও করেনি।। র্দূঘটনার ভয়ে সে কখনো গাড়িতে চড়ে নি।

যখন এই মানুষটির জিবনের যখন শেষ সময় চলছে।।জিবনের শেষ কিছু নিশ্বাসই বাকি রয়েছে এমন সময় লোকটি বলতে লাগল , কি করলাম  জিবনে, কি করলাম জিবনে, হাই কি করলাম জিবনে। সে   এই কথা বলতেই থাকল ততক্ষন , যতক্ষন তার নিশ্বাস শেষ  না হয়ে গেল।

আমি তখন অনেক ছোট ছিলাম তো। এই গল্প টি তার পর থেকে আমি যখনই শুনতাম কান্না করতাম। শুধু তাই  নই যখনই এই গল্প আমার মনে পড়ত আমার কান্না আসতো।
তখন সেই সময় আমি জানতাম না আমি কেন কান্না করতাম আজ এত বছর পর আমি জানি আমি কেন কান্না করতাম।
আমি কান্না করতাম ঐ লোকটার জন্য নয়। বরং এই চিন্তা করে কান্না করতাম যে আমার মৃত্যুর সময় আমি কি বলব।।আর মন থেকেই একটা শফথ করে ফেলি যে এমন কিছু তো করব যেই কাজের জন্য আমার মৃত্যুর সময় কোন আবশোস থাকবে না। মৃত্যুর সময় বলতে পারব কি – ”জিবন একটা কাটিয়েছি”  


আর আমার বিশ্বাস ছিল যে আমি কিছু করতে পারব। আমার এই বিশ্বাস এতটাই মজবুত ছিল  যে সেইদিন থেকে আমাকে আজকের এই দিনে টেনে এনেছে।। হ্যা তুমিও পারবে যদি মন থেকে নিজের উপর বিশ্বাস রেখে আজ তোমার লক্ষ্য ঠিক করতে পারো। আমি নিশ্চয়তা দিচ্ছি যে কোন এক দিন  তুমি তোমার লক্ষ্যে পৌছাবেই।।

সব শেষে কিছু বাক্য তোমাদের জন্য  আমার তরফ থেকে: 

১. ভুল করাটা প্রাকৃতিক, ভুল মেনে নেওয়াটা যৌত্তিক,ভুল শুধরে নেওয়াটা উন্নতির পরিচয় দেয়।
২.কেউ তোমার কাছে অন্যায় করেছে তার ক্ষমা চাওয়ার অপেক্ষা করো না তাকে ক্ষমা করে দাও। তবেই তোমার মহানুভবতার পরিচয় আসবে।
৩.কেউ তোমার কাছে ক্ষমা চাইল আর তুমি ক্ষমা করলে  এটা নিয়ে নিজেকে খুব মহান ভাবার দরকার নেই। কারণ ক্ষমা চাওয়াটাই মহান হৃদয়ের সৃষ্টি করে।
৪. তোমার চারপাশে কি হচ্ছে তা দেখে ভেঙে পড়ো না। কেননা ক্লাসে  ছাত্রের সংখ্যা যতই হোক প্রথম কিন্তু একজনই হয়।

0 Comments:

Post a Comment